৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্পে পাকিস্তানে ১৩০ ও আফগানিস্তানে ৩৭ জন নিহত

প্রকাশিত

ডেস্ক প্রতিবেদন : দক্ষিণ এশিয়ার ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও তাজিকিস্তানে সোমবার দুপুরে শক্তিশালী ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। ৭ দশমিক ৫ মাত্রার ওই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলের হিন্দুকুশ পর্বত অঞ্চলে।

afghanistan_quake_map

ভূমিকম্পের কেন্দ্র ছিল উত্তরপূর্ব আফগানিস্তানে। ছবি ইউএসজিএস

এ ভূমিকম্পে এ পর্যন্ত পাকিস্তানে ১৩০ জন ও আফগানিস্তানে ৩৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছে কয়েক শ’। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

শক্তিশালী ভূমিকম্পের ফলে ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হওয়ায় হতাহতের এ ঘটনা ঘটে বলে গণমাধ্যমে বলা হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা বলছে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৭। এর উৎপত্তিস্থল ছিল আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল থেকে ২৫০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে হিন্দুকুশ অঞ্চলের ২১৩ দশমিক ৫ কিলোমিটার গভীরে। স্থায়িত্ব ছিল প্রায় ৪০ সেকেন্ড।

ভারতের দিল্লি, কাশ্মীর, হরিয়ানা ও পাঞ্জাবেও ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে।

তিনটি দেশেরই রাজধানীতে এই ভুমিকম্প অনুভূত হয়। এতে কাবুল, ইসলামাবাদ ও দিল্লির ভবনগুলো প্রায় মিনিটখানেক ধরে দুলতে থাকে।

রাওয়ালপিন্ডি ও পেশাওয়ার শহরের বেশ কিছু ভবন সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে। পাকিস্তানের লাহোরে ভূকম্পনের সময় ফোন লাইন বিকল হয়ে পড়ে বলে বিবিসির একজন সংবাদদাতা জানিয়েছেন।

দিল্লিতে আতংকিত শত শত লোক এ সময় ছুটে রাস্তায় বেরিয়ে আসে। দিল্লির পাতাল রেল কিছুসময়ের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে বাসিন্দারা বলেছেন, এত শক্তিশালী ভুমিকম্প তারা এর আগে অনুভব করেননি।

আফগানিস্তানে টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, হাসপাতালগুলোকে জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য তৈরি রাখা হয়েছে।

পাকিস্তানের পেশোয়ার ও উত্তর পশ্চিম সীমান্ত এলাকার সোয়াত, বাজাউর, কাল্লার কাহার, সারগোদা, কাসুরে অধিকাংশ হতাহতের খবর পাওয়া গেছে। পাকিস্তানী গণমাধ্যম ডন জানিয়েছে, খাইবার পাখতুনখাওয়া ও ফাতায় ১২১ জন, পাঞ্জাবে ৫ জন, কাশ্মীরে ১ জন ও বেলুচিস্তানে ৩ জন নিহত হয়েছে।

এদিকে আলজাজিরা জানিয়েছে আফগানিস্তানে এ পর্যন্ত ৩৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে টাকার প্রদেশে মেয়েদের একটি বিদ্যালয়ে ধসে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

পাকিস্তানের পেশোয়ার, সোয়াতসহ ভূমিকম্প আঘাত হানা বিভিন্ন এলাকায় হাসপাতালগুলোতে শত শত আহত মানুষ ভর্তি হয়েছে।

ভূমিকম্পের ফলে পাকিস্তানের ইসলামাবাদ ও পেশোয়ারের যোগাযোগ ব্যবস্থায় বিঘ্ন ঘটেছে। বড় ভূমিকম্পটির ৪০ মিনিট পর একই এলাকায় আবার ভূমিকম্প অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৪ দশমিক ৮। সূত্র : ডন নিউজ ও বিবিসি

শেয়ার করুন