হত্যাচেষ্টা মামলায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান দিপু খান গ্রেপ্তার

প্রকাশিত

ফরিদপুর সংবাদদাতা : ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলায় চর হরিরামপুর ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কে এম ওবায়দুল বারী দিপু খানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ রোববার দুপুরে একটি হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামী হিসেবে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করার পর তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত চরভদ্রাসন উপজেলার উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন দিপু খান। এ কারণে তাকে মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সৈয়দ আওলাদ হোসেন বলেন, রোববার রাত ২টার দিকে জাকেরের সুরা বাজার হতে দিপু খানকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে একটি হত্যাচেষ্টা মামলা রয়েছে।

জানা গেছে, গত ৩০ অক্টোবর শুক্রবার সন্ধায় চর হরিরামপুর ইউনিয়নের চর শালেপুর গ্রামের মৃত শেখ খালেকের ছেলে আসাদ শেখের উপর হামলার ঘটনা ঘটে। এরপর চরভদ্রাসন থানায় আসাদের মা আসমা বেগম (৬০) বাদী হয়ে দিপু খান কে প্রধান আসামী করে ১৩ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন।

আসাদের স্ত্রী সাবিনা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে উজ্জলের সাথে তাদের বিরোধ চলে আসছিল। দীপু খানের ছত্রচ্ছায়ায় উজ্জল মাদক ব্যবসাসহ সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে বেড়ায়। ওইদিন দিপুর নির্দেশে উজ্জল ও তার সঙ্গীরা তার স্বামীকে হত্যার চেষ্টা করে।

এ বিষয়ে দিপুর পরিবারের সাথে যোগাযোগ করা যায়নি। তবে এ অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন চর হরিরামপুরের বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও দিপুর চাচাতো ভাই আমীর হোসেন খান বলেন, ওইদিনের মামামারির ঘটনায় উজ্জলসহ পাঁচজন জড়িত ছিল। এ ঘটনার সাথে দিপুর কোন সম্পৃক্ততা নেই। চরভদ্রাসন উপজেলা উপ-নির্বাচনে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করায় সে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার।

জানা গেছে, এই হত্যাচেষ্টা মামলার আসামী বাদশা খানের ছেলে উজ্জলের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলাও রয়েছে।

শেয়ার করুন