শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মারধরে আহত গৃহবধূর মৃত্যু

প্রকাশিত

সোহরাব হোসেন(মানিকগঞ্জ): পারিবারিক কলহের জেরে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মারধরের শিকার তিন সন্তানের জননী জোসনা বেগম (৩৫) নামের এক গৃহবধূর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বেধড়ক মারধরের পর ওই গৃহবধূর মুখে বিষ ঢেলে মামার বাড়িতে রেখে গেছে বলে নিহতের পরিবার অভিযোগ করেছেন।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) দিবাগত রাতে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জামির্ত্তা ইউনিয়নের রামকান্তপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত গৃহবধূর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তার স্বামী মিরাজ আলী মালেয়েশিয়া প্রবাসী। বিদেশ যাওয়ার সময় সে শশুরবাড়ি থেকে ৩ লক্ষ টাকা ধার নেন। ওই টাকা ফেরত চাওয়ায় স্ত্রীর সাথে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দ্ব›েদ্বর সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার জের ধরে ওই রাতে ঝগড়ার এক পর্যায়ে নিহতের চাচা শ্বশুর দলিল উদ্দিন, আলতাফ হোসেন এবং দেবর ছানোয়ার ও আরজ আলী রাতে জোসনাকে মারধর করে। আহত অবস্থায় মুখে বিষ ঢেলে রাতেই ওই গ্রামের জোসনার মামা সাইদ আলীর বাড়িতে ফেলে রেখে আসে তারা। মূমুর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পথে জোসনার মৃত্যু হয়।

নিহত গৃহবধূর চাচা শ্বশুর অভিযুক্ত দলিল উদ্দিন মারামারির কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে তার ভাতিজার স্ত্রী গত ১৫ দিন আগে গৃহস্থালীর মালামালসহ বাবার বাড়ি পাশ্ববর্তী জয়মন্টপ ইউনিয়নের মীরেরচর গ্রামে চলে যায়। ঘটনার রাতে এখানে এসে সে বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। ওই অবস্থায় তাকে পাশেই তার মামার বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হয়। মারধরের কারণে জোসনার মৃত্যু হয়নি বলে দলিল উদ্দিন দাবী করেন।

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গৃহবধু বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন