লালমাটিয়া-শাহবাগের হামলা একই চক্রের, আঘাতের ধরনও এক

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : লেখক-প্রকাশকদের ওপর হামলা একই চক্রের বলে ধারণা করছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। একই সময়েই লালমাটিয়া-শাহবাগে এ হামলা চালানো হয়েছে বলেও তারা মনে করেন।  এদিকে, চিকিৎসকরা  বলছেন, আঘাতের চিহ্নও একই ধরনের। গোয়েন্দারা বলছেন, এ দুটি হামলায় অংশ নিয়েছে একাধিক গ্রুপ। তবে, চিকিৎসক, পুলিশ ও গোয়েন্দারা এমন তথ্য দিলেও মধ্যরাত পর্যন্ত হামলাকারীদের শনাক্ত করা যায়নি। তাদের আটকও করতে পারেননি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বরের প্রকাশকসহ তিনজনের ওপর যে ধরনের আঘাত করা হয়েছে, একইভাবে আঘাত করা হয়েছে শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে জাগৃতি প্রকাশনীর মালিক ফয়সাল আরেফিন দীপনের ওপরও।

শুদ্ধস্বরের কার্যালয় ও জাগৃতি প্রকাশনীর কার্যালয়ে হামলা দুটির ঘটনা একই সময়ে হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার শেখ মারুফ হাসান। তিনি বলেন, একই সময়ে একই চক্রের একাধিক গ্রুপ এসব হামলা চালায়। ঢামেক হাসপাতালে নিহত-আহতদের দেখা শেষে ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়াও সাংবাদিকদের প্রায় একই কথা বলেন। তিনি বলেন, এ হামলা পূর্ব পরিকল্পিত। খুনিদের খুঁজে বের করতে পুলিশ ও গোয়েন্দারা কাজ করছেন।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বর ও শাহবাগে জাগৃতির কার্যালয়ে হামলা করে প্রকাশক-ব্লগারদের কুপিয়ে দুর্বৃত্তরা অফিসের বাইরে তালা দিয়ে চলে যায়। এতে মর্মান্তিকভাবে জাগৃতির প্রকাশনীর মালিক ফয়সাল আরেফিন দীপনের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত হন শুদ্ধস্বরের প্রকাশক আহমেদুর রশিদ টুটুল, কবি তারেক রহিম ও লেখক রনদীপম বসু।
ঢামেকের আবাসিক সার্জন রিয়াজ মোর্শেদ বলেন, তিনজনের মাথা, হাত ও শরীরে চাপাতি দিয়ে কোপানো হয়েছে। একমাত্র তারেক রহিমের বাম পাঁজরে গুলির চিহ্ন রয়েছে। রণদীপ বসু আশঙ্কামুক্ত হলেও অন্য দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে।
নিউরো সার্জারি বিভাগের ইউনিট-১-এর চিকিৎসক উজ্জ্বল সাধুখা জানান,  টুটুলের মাথা ও হাতে এবং বসুর হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তারেক রহিমকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার পর গুলি করে দুর্বৃত্তরা। একটি গুলি তার বাম পাঁজরে বিদ্ধ হয়। আহতদের ঢাকা ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তারেক রহিমের অবস্থা সংকটজনক। রাতেই তার অপারেশন ও সিটি স্ক্যান করা হয়েছে।

একই চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন টুটুলও। তার অবস্থাও সংকটজনক। তবে রনদীপম বসু আশঙ্কামুক্ত বলে জানান একই হাসপাতালের আবাসিক সার্জন কে এম রিয়াজ মোর্শেদ।

জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক দীপনকে কুপিয়ে হত্যা ও শুদ্ধস্বরের প্রকাশক টুটুলসহ তিনজনকে কুপিয়ে আহত করার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, এ ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে। আগামী দু-একদিনের মধ্যে এ সব ঘটনা তদন্তের অগ্রগতির বিষয়ে জানাতে পারবেন।

ঘটনা দুটি মৌলবাদীদের কাজ বলে অভিযোগ করেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার। তিনি বলেন, সরকারের ভেতরে থাকা একটি গোষ্ঠী ব্লগার হত্যাকারীদের পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে যাচ্ছে বলেই বারবার একই ধরনের হামলার ঘটনা ঘটছে।

শেয়ার করুন