লালমনিরহাটে নদীভাঙন রোধে বিকল্প পদ্ধতি উদ্ভাবনের দাবি

প্রকাশিত

মুক্তমন ডেস্ক: ভাঙন রোধে বিকল্প পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছে লালমনিরহাটের উত্তরবঙ্গ বিজ্ঞান ক্লাব। উদ্ভাবিত পদ্ধতিতে বাঁশ, কাঠ, প্লাস্টিকের বস্তা, পাইপ আর বালু দিয়েই অল্প খরচে নদীভাঙন রোধ সম্ভব বলে দাবি উদ্ভাবকদের।

যদিও পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, বাস্তব প্রয়োগের পরই জানা যাবে এর কার্যকারিতা।

প্রতি বছর তিস্তা-ধরলার আগ্রাসী ভাঙনে দিশেহারা লালমনিরহাটের নদী তীরের মানুষ। চোখের সামনেই মাথাগোঁজার শেষ আশ্রয় বিলীন হলেও, চেয়ে দেখা ছাড়া যেন আর কিছুই করার থাকে না।

মানুষের নিদারুণ কষ্টের কথা ভেবে ভাঙন ঠেকাতে বিকল্প পদ্ধতি উদ্ভাবনের দাবি জেলার উত্তরবঙ্গ বিজ্ঞান ক্লাবের। হাতের নাগালে থাকা কিছু সহজলভ্য উপকরণের মাধ্যমেই তা সম্ভব বলে দাবি উদ্ভাবকদের।

উদ্ভাবক সুদান চন্দ্র রায় বলেন,’কাঠের বাক্স বা বাঁশের বাক্সে যদি বালু বোঝাই বস্তা ভরে যেখানে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয় সেখানে ফেলতে পারলে অবশ্যই ভাঙ্গন প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে। ‘

এই পদ্ধতিতে খরচ কম এবং প্রস্তুতেও সময় কম লাগে। ফলে ভাঙন কবলিত এলাকায় তাৎক্ষণিক ক্ষতির পরিমাণও কমে আসবে বলে মনে করেন তারা। তবে, পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, এটি কতটা কার্যকরী হবে তা প্রয়োগের পরই নিশ্চিত হওয়া যাবে।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন,’এই পদ্ধতি নিয়ে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন আছে। এই পদ্ধতি প্রয়োগের পরই বুঝা যাকে কতখানি কার্যকর।’

পদ্ধতি যেমনই হোক, নদীপাড়ের মানুষের চাওয়া, ভাঙন রোধে স্থায়ী সমাধান।

শেয়ার করুন