রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের দণ্ড কার্যকরকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় কারাগারসহ পুরো ঢাকা শহরে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রাজধানীসহ সারাদেশে র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশের যৌথ বাহিনী তল্লাশি জোরদার করেছে।

জানা গেছে, রায় কার্যকরকে কেন্দ্র করে যাতে কেউ নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড না ঘটাতে পারে সেদিকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

গতকাল (শুক্রবার) সন্ধ্যার পরেই পুলিশ সদর দফতরের এক আদেশে নাজিমুদ্দিন রোডসহ ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার সংলগ্ন এলাকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ ও র‌্যাব সদস্য মোতায়েন করা হয়। কারা ফটকের সামনের সড়কে নিয়ে আসা হয়েছে পুলিশের এপিসি গাড়ি।

রাজধানীর জামায়াত অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে কঠোর গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত রেখেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয় এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য।

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক জানিয়েছেন, যারা এই রায়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নিচ্ছে আমরা তাদের নজরদারিতে রেখেছি। গোয়েন্দা বাহিনীর একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান জানান, রায়কে কেন্দ্র করে যাতে কেউ নাশকতা সৃষ্টি করতে না পারে এজন্য সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে র‌্যাব।

রাজধানীসহ সারাদেশে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও জন নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট পয়েন্টে প্রয়োজনীয় সংখ্যক র্যাব সদস্য কাজ করছে। নিয়মিত টহলসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট তৈরি করে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। এছাড়াও সাদা পোশাকে র‌্যাবের গোয়েন্দা টিম কাজ করছে।

এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল আজীজ আহমেদ বলেন, রাজধানীসহ সারাদেশে নাশকতাকারীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে যৌথ বাহিনীর সঙ্গে কাজ করছে বিজিবি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী নিরাপত্তা টহল ও তল্লাশি অভিযানে নামবে বিজিবি সদস্যরা।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত ও বিএনপির দুই নেতার এখন শুধু রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার বিষয়টি বাকি আছে। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে শুধু নির্বাহী আদেশের অপেক্ষা। এজন্য ঢাকা শহরে কেউ যাতে নাশকতা সৃষ্টি ও হট্টগোল করতে না পারে সেজন্য নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা। রাজধানীর প্রবেশ দ্বারে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন এবং তল্লাশি আরও জোরদার করা হয়েছে। কারাগার সংলগ্ন এলাকার প্রতিটি ভবনে গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের করা রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে তাদের মৃত্যুদণ্ডই বহাল রয়েছে। এখন রায় কার্যকরে আর আইনি বাধা নেই। এখন শুধু রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাওয়ার বিষয়টিই বাকি রয়েছে।

শেয়ার করুন