মাশরাফি, আমরা তো এমনই!

প্রকাশিত

হাসান শান্তনু : কাউকে উলঙ্গ করার সাংবাদিকদের ‘শখটা’ মিটিয়ে দিয়ে গেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৩৬তম প্রেসিডেন্ট লিন্ডন বি. জনসন। এক ‘সংবাদ সম্মেলনে’ তিনি শুধু আক্ষরিক অর্থে নয়, পরনের সব কাপড় খুলে নানা অর্থেই উলঙ্গ হয়েছিলেন বলে কথিত আছে। তাঁর মতো ‘শৈল্পিকভাবে এমন উলঙ্গ হওয়ার নজির’ ইউরোপ-আমেরিকার দেশগুলোর কোনো রাষ্ট্রপ্রধানও আজ পর্যন্ত ‘স্থাপন’ করতে পারেননি। ঠিক লিন্ডনের মতো (কাপড় খুলে নয়) না হলেও অন্য অর্থে উন্নত দেশের সাংবাদিকরা সংবাদ সম্মেলনে নানা প্রশ্নে রাষ্ট্রপ্রধানদের উলঙ্গ করার ‘চেষ্টা’ যে আজও করে আসছেন, এ বিষয়ে সবাই একমত।

ওই বিচারে এ দেশের অনেক সাংবাদিকই ‘ভদ্র, রক্ষণশীল, উন্নয়নকামুক’। আমাদের ‘অতি রক্ষণশীলতার’ (ভাষাজ্ঞানে সীমাবদ্ধতা?) চাপে প্রায় সময় নিজেদের ‘জ্ঞানভাণ্ডারের খালি থলেটাও’ উলঙ্গ হয়ে পড়ে। ঈদ উৎসবে নাড়ির টানে মানুষের গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার বিষয়ে বছর কয়েক আগে একটা দৈনিক পত্রিকা শিরোনাম করে- ‘নারীর টানে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ’। ক্রিকেটার তামিম ইকবাল নিজের ফেসবুক পাতায় একবার স্ত্রীর ছবি দেন। কয়েকটা অসভ্য মন্তব্যে লেখে, ‘ভাবি কী গর্ভবতী?’

আপত্তিকর, নোংরা মন্তব্য আসতে থাকলে তামিম ওই ছবি ডিলিট করে দেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঢাকার কথিত একটা অনলাইন পোর্টাল তখন শিরোনাম করে- ‘তামিমের স্ত্রী যেভাবে গর্ভবতী’। এ বিষয়ক সবশেষ ‘তাজা খবর’ ক্রিকেট তারকা মাশরাফি বিন মোর্তজাকে নিয়ে। নির্যাতনের শিকার হয়ে স্বামীর ঘর থেকে বিতাড়িত এক নারীর পাশে দাঁড়িয়েছেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি। এ বিষয়ে আজ একটি দৈনিক পত্রিকা ও একটি অনলাইনে খবরের শিরোনাম হয়- ‘মাশরাফি অন্যের স্ত্রীকে কাছে টেনে নিয়েছেন’! কী ভয়ানক শিরোনাম!

কোন শব্দগুলো স্ত্রীর পাশে, কোনটা শ্যালিকার নামের আগে, কোনটা ভাই-বোনের বেলায়, বাবা-মায়ের বেলায় কেমন শব্দ, কোনটা সন্তানের বেলায়- এমন সাধারণ জ্ঞান না থাকলেও আমরা সাংবাদিক হতে পারি! কতো সহজ পেশা আমাদের। পরম মানবিক একটা বিষয় নিয়ে নোংরা শিরোনাম হওয়ায় ফেসবুকে নিজের ভেরিফায়েড পাতায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মাশরাফি। অবশ্য তিনি প্রতিবাদ করার পর শিরোনাম পরিবর্তন করেছে সংশ্লিষ্ট দুটি সংবাদমাধ্যম। তবু আমাদের জিজ্ঞাসা- মি. মাশরাফি আপনি ক্ষেপেছেন কেন? আমরা তো এমনই!

লেখক : গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব

শেয়ার করুন