বাড়িতে সরকারি চাল, পুলিশ দেখে পালালেন নারী ইউপি সদস্য

প্রকাশিত

মুক্তমন ডেস্ক: সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার খাসপুখুরিয়ায় ইউপি সদস্য জহুরা বেগমের বাড়ি থেকে ভিজিডির ৪৭ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে, অন্যত্র বিক্রির উদ্দেশ্যেই এসব চাল মজুদ করা হয়েছিল। উদ্ধারকৃত এই ১ হাজার ৪১০ কেজি চাল ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সরকারের যোগসাজোশে মজুদ করা হয়েছিল।

চৌহালী উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয়রা জানান, চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সরকারের যোগসাজসে ক্রয় করা ভিজিডির ওই চালগুলো দক্ষিণ খাসপুখুরিয়া গ্রামের সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য জহুরা বেগমের বাড়িতে মজুদ রাখা হয়েছিল।

সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আফসানা ইয়াসমিনের নেতৃত্বে সোমবার (৩১ আগস্ট) রাতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় ইউএনও ও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই নারী ইউপি সদস্য পালিয়ে যান। পরে চালগুলো উদ্ধার করা হয়।

এলাকাবাসী জানান, উদ্ধারকৃত চাল কার্ডধারীদের কাছ থেকে স্বল্পমূল্যে কেনা হয়েছিল চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদের সামনেই।

দীর্ঘদিন ধরেই এভাবে রিলিফের চাল বিক্রি করা হলেও নিষেধ করেননি চেয়ারম্যান। তাই তা ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ অব্যাহত রয়েছে।

এ ব্যাপারে খাসপুখুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সরকার জানান, উদ্ধারকৃত চালগুলো বিতরণের সময় আমার এখান থেকেই কেনা হয়েছিল।

আমি বাধা দিলেও চাল মজুদকারীরা শোনে না। এ কাজে আমি জড়িত নই।

এদিকে ঘটনার ব্যাপারে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আফসানা ইয়াসমিন জানান, আমরা জানা মাত্রই অভিযান চালিয়ে চালগুলো উদ্ধার করেছি। চাল আত্মসাতের চেষ্টার ঘটনায় মামলা হয়েছে।

শেয়ার করুন