ফারুকীর সিনেমায় এ আর রহমান সহপরিচালক

প্রকাশিত

বিনোদন ডেস্ক : চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’ চলচ্চিত্রে যুক্ত হলেন অস্কারজয়ী ভারতীয় সংগীত পরিচালক, সুরকার এ আর রহমান।

যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিতব্য এ চলচ্চিত্রে সহপ্রযোজক ও সংগীত পরিচালক হিসেবে যুক্ত হয়েছেন বলে ভ্যারাইটি ডটকমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানান তিনি।

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীও বৃহস্পতিবার সকালে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পৃথিবীতে চলমান অভিবাসন ও পরিচয় সঙ্কটের গল্পে ইংরেজি ভাষার এ চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন বলিউড অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী; অভিনয়ের সঙ্গে চলচ্চিত্রের সহপ্রযোজনায়ও আছেন তিনি।

বাংলাদেশের অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে আছেন তাহসান খান; গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন অস্ট্রেলিয়ান অভিনেত্রী মিশেল মেগান।

এ চলচ্চিত্রে যুক্ত হওয়ার কারণ হিসেবে এ আর রহমান বলেন, “সময় সবসময়ই নতুন পৃথিবী, নতুন আদর্শের জন্ম দেয়। সদ্যোজাত পৃথিবীতে নতুন নতুন সংকট থাকে, নতুন নতুন গল্পও বলে। এটি (নো ল্যান্ডস ম্যান) সেই ধরনেরই একটি গল্প।”

তাকে স্বাগত জানিয়ে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী বলেন, “উনার মতো একজন শিল্পীকে পেয়ে আমরা সম্মানিত বোধ করছি। শুধু সংগীত পরিচালক হিসেবেই নয় সহপ্রযোজক হিসেবে তিনি এ চলচ্চিত্রকে সমৃদ্ধ করবেন।”

‘স্লামডগ মিলিয়নিয়ার’ চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনার জন্য ৮১তম অস্কারে দুটি পুরস্কার লাভ করেন এ আর রহমান। যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ প্রযোজনায় ‘১২৭ আওয়ার্স’ চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনার জন্য একাধিকবার মনোনয়ন পেয়েছিলেন তিনি। সুরকার হিসেবে একাধিকবার পেয়েছেন গ্রামি অ্যাওয়ার্ড।

‘নো ল্যান্ডস ম্যান’ চলচ্চিত্রের প্রযোজনায় এ আর রহমানের সঙ্গে আছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রযোজক শ্রীহরি শাথে, স্কয়ার গ্রুপের অঞ্জন চৌধুরী, নুসরাত ইমরোজ তিশা ও বঙ্গবিডি।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক ও অস্ট্রেলিয়ার সিডনি, ভারতের মুম্বাই ও লখনৌতে চলচ্চিত্রের দৃশ্যধারণ হয়েছে। দৃশ্যধারণ শেষ চলচ্চিত্রটি এখন সম্পাদনার টেবিলে রয়েছে, চলতি বছরের শেষভাগে মুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে।

২০১৪ সালে প্রথম বুসান ফিল্ম ফেস্টিভালে এশিয়ান প্রজেক্ট মার্কেটে নির্বাচিত হয়েছিল ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’। এরপর একই বছর নভেম্বরে ভারতের এনএফডিসি আয়োজিত ফিল্ম বাজারে শ্রেষ্ঠ প্রজেক্টের পুরস্কার লাভ করে।

একই বছরের ডিসেম্বরে মোশন পিকচার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ আমেরিকা এবং এশিয়া প্যাসিফিক স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ড-এর যৌথ উদ্যোগে দেয়া অ্যাপসা ফিল্ম ফান্ড লাভ করে।

প্রতিবছর এশিয়ার দুটি চলচ্চিত্রকে এই ফিল্ম ফান্ডের জন্য নির্বাচিত করা হয়। ২০১৪ সালে এটি পেয়েছিলেন বাংলাদেশের ফারুকী এবং ইরানের জাফর পানাহি।

ফারুকীর আরেক চলচ্চিত্র ‘শনিবার বিকেল’ সেন্সর বোর্ডের এখনও আটকে আছে। ছবিটি আদৌ ছাড়পত্র পাবে কি না তা সেন্সর বোর্ডের চেয়ারম্যান নিশ্চিত করতে পারেননি।

শেয়ার করুন