নজিরবিহীন নিরাপত্তার জালে কারাগার

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ ও বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর (সাকা) ফাঁসির রায় কার্যকর নিয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার ও এর আশপাশের এলাকাজুড়ে নজিরবিহীন নিরাপত্তাবেষ্টনী তৈরি করা হয়েছে।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে কারাগারের সামনের সব রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

রাত ৮টার পর র‌্যাব-পুলিশের পাশাপাশি গোয়ন্দা পুলিশের সদস্যদেরও দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে। কারাগারের সামনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও গণমাধ্যমকর্মী ছাড়া অন্য কাউকে অবস্থান করতে দেওয়া হচ্ছে না।

চানখাঁরপুল থেকে কারাগারের দিকে যাওয়া রাস্তা এবং বংশাল-চকবাজার থেকে কারাগারের দিকে যাওয়ার রাস্তা ব্যারিকেড দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ সব সড়ক হেঁটে পার হতে হচ্ছে স্থানীয়দের। আর সন্দেহ হলে তল্লাশিসহ বিভিন্ন প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে পথচারীদের।

জানা গেছে, সন্ধ্যার পর কারাগারের সামনে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যদের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। সেখানে চার প্লাটুন পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে।

এদিকে সাকা-মুজাহিদের রায় কার্যকরকে সামনে রেখে সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ চট্টগ্রাম ও অন্যান্য বিভাগীয় শহরে বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে।

সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে দেশের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। র‌্যাব সদর দফতরের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মোহাম্মদ খান দ্য রিপোর্টকে এর আগে বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধীদের রায় কার্যকরকে কেন্দ্র করে কোনো মহল যেন নাশকতা সৃষ্টি করতে না পারে এবং আইনশৃঙ্খলা যেন বিঘ্ন না ঘটে, সে জন্য র‌্যাব গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় প্রয়োজনীয়সংখ্যক সদস্য মোতায়েন করেছে।’

তিনি বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখেতে যা যা প্রয়োজন র‌্যাবের পক্ষ থেকে তাই করা হয়েছে।’

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) উপ-কমিশনার (ডিসি) মুনতাসিরুল ইসলাম বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজধানীর নিরাপত্তা আগে থেকেই জোরদার রয়েছে। রায় ঘোষণার পর নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও জোরদার করা হয়। এ ছাড়া পুলিশকে আরও সতর্ক অবস্থায় থাকতে বলা হয়েছে।’

অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা রোধে এবং অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় পুলিশ প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানান মুনতাসির।

এদিকে নাশকতা মোকাবেলায় শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে ২০ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

বিজিবি সদর দফতরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মুহসীন রেজা সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার করুন