ঢাকা থেকে পালানো করোনায় আক্রান্ত তরুণীকে পাওয়া গেল রাজবাড়ীতে

প্রকাশিত

রাজবাড়ী: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পালানো তরুণীকে রাজবাড়ীতে তার শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাকে সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিবেশী দুই গ্রাম লকডাউন করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

বুধবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের বক্তারপুর গ্রামের শ্বশুরবাড়ি থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টা থেকে বাড়িটি ঘিরে রাখে পুলিশ। পরে বক্তারপুর ও পাশের সমেশপুর গ্রাম লকডাউন করা হয়েছে।

রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, ‘কয়েকদিন আগে ওই তরুণী অসুস্থ হলে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যান। সেখান থেকে তাকে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানেই তার শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। তবে মঙ্গলবার বিকেলে স্বামীর সঙ্গে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে আসেন তিনি। পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে গভীর রাত থেকেই বাড়িটি ঘিরে রাখে।

ওসি স্বপন বলেন, পরে জেলা সিভিল সার্জন ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওই বাড়িতে যান। সেখান থেকে ওই তরুণী ও তার স্বামীকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি করান।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. নুরুল ইসলাম বলেন, আপাতত সদর হাসপাতালেই ওই তরুণীর চিকিৎসা হবে। তার স্বামীর শরীর থেকেও নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হবে। তাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে মনে হলে ঢাকায় পাঠানো হবে।

রাজবাড়ী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাঈদুজ্জামান খান বলেন, বক্তারপুর ও পাশের সমেশপুর গ্রাম লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। দাদশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে একটি স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন করে হটলাইন নম্বর চালু করতে বলা হয়েছে। লকডাউনে থাকা দু’টি গ্রামের কোনো মানুষের খাদ্যসামগ্রী বা কোনো ধরনের সহায়তা প্রয়োজন হলে ওই নম্বরে ফোন করলেই স্বেচ্ছাসেবক টিমের সদস্যরা সহায়তা পৌঁছে দেবেন।

শেয়ার করুন