গাইবান্ধায় অদক্ষ্য কর্মী দিয়ে বিদ্যুতের ঝুঁকিপূর্ণ কাজ

প্রকাশিত

মুক্তমন ডেস্ক:অদক্ষ কর্মী দিয়ে কাজ করার ফলে ঘটছে দুর্ঘটনা, পঙ্গুত্ব বরণ করছেন অনেকে

গাইবান্ধায় অর্থের লোভ দেখিয়ে অদক্ষ ও প্রশিক্ষণহীন কর্মীদের দিয়ে করানো হচ্ছে বিদ্যুতের ঝুঁকিপূর্ণ কাজ।

এই কাজ করতে গিয়ে কেউ কেউ বরণ করছেন পঙ্গুত্ব। পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ দেয়া হয় ঠিকাদারকে। নিয়ম বহির্ভূত কাজের দায় তাদেরই।

সাঘাটার শহিদুল ইসলাম। নেত্রকোণার অনন্তপুরে গ্রাহকদের সংযোগ দিতে ওঠেন ১১ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের খুঁটিতে। নিরাপত্তা সামগ্রী না থাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে হারান দুই হাত।

এরপরই কাজ হারান শহীদুল। স্ত্রী সন্তান নিয়ে তার সংসার চলে খেয়ে না খেয়ে। চিকিৎসার অভাবে কদিন আগে মারা গেছে বড় ছেলে। শহীদুলের মত এমন অনেক অদক্ষ ও প্রশিক্ষণহীন মানুষকে প্রলোভন দেখিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করাচ্ছেন ঠিকাদাররা।

পল্লী বিদ্যুত কর্তৃপক্ষের দাবি, টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ দেয়া হয় ঠিকাদারকে। দুর্ঘটনার সব দায় তাদের।

নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান বলেন, আমাদের কি করার আছে।

যেহেতু এসব কাজ ঠিকাদারদের নিয়োগকৃতরাই করে এখানে আমাদের কিছু করার নেই। আমরা ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পারি কিন্তু তারা কাদের দিয়ে কাজ করাবে সেখানে আমাদের কিছু করার নেই।

দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুৎ কর্মীদের সহায়তার আশ্বাস সমাজ সেবা কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমদাদুল হক প্রামাণিকের।

তিনি বলেন, যারা এই কাজ করতে গিয়ে পঙ্গু হয়ে গেছে, তাদেরকে আমরা চলতি অর্থবছর থেকে ভাতার আওতায় আনবো। তাদেরকে সব ধরণের সাহায্য সহযোগিতা আমাদের তরফ থেকে করা হবে।

শুধু ক্ষতিপূরণ নয়, প্রশিক্ষণ না দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করানোর দায়ে জড়িতদের শাস্তি চান এলাকাবাসী।

শেয়ার করুন