ক্লাব-ফুটবলারদের যে সমীকরণ মেলাতে পারছে না

প্রকাশিত

মুক্তমন ডেস্ক: পরিত্যক্ত মৌসুমের পাওনা পরিশোধ করে নতুন মৌসুমের চুক্তির ৫০ ভাগ অগ্রিম দিতে হবে-বাফুফের প্রফেশনাল লিগ কমিটির সঙ্গে আলোচনায় এমন দাবি করেছিল ফুটবলারদের প্রতিনিধি দল।

কিন্তু মঙ্গলবার লিগ কমিটির সঙ্গে আলোচনায় ক্লাবগুলো আগের পাওনা পরিশোধ করে নতুন চুক্তির ২০ ভাগ পর্যন্ত দিতে রাজি হয়েছে।

ক্লাব ও ফুটবলারদের অগ্রিমের এ সমীকরণ মেলাতে পারছে না লিগ কমিটি। তাই ক্লাবগুলোর কাছে লিখিত মতামত চাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

লিগ কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সিনিয়র সহসভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী প্রস্তাব দিয়েছিলেন, খেলোয়াড় ও ক্লাবগুলোর চাওয়ার মাঝামাঝি পর্যায় একটা অবস্থানে থাকার।

নতুন মৌসুমের চুক্তির ৩৫ ভাগ অগ্রিম দেয়া যায় কি না, ক্লাবগুলোকে সেটা বিবেচনার প্রস্তাব দিয়েছিলেন লিগ কমিটির প্রধান। তাতে দুই একটি ক্লাব বলেছে- তারা সর্বোচ্চ ২৫ ভাগ পর্যন্ত দিতে পারবেন, তার বেশি সম্ভব নয়।

পারিশ্রমিকের এ ইস্যুটি ঝুলে থাকায় প্রিমিয়ার লিগের ১৩ ক্লাবের কাছে লিখিত মতামত চাওয়া হবে। এর সঙ্গে থাকবে আরো কয়েকটি বিষয়ে। যেগুলোর মধ্যে আছে দলবদলের তারিখ, মৌসুম শুরু, বিদেশি কোটা এবং ভেন্যু।

ক্লাবগুলো ভেন্যু কমাতে বলেছে। বলেছে দীর্ঘ সময়ের পরিবর্তে প্রিমিয়ার লিগের সময়কাল কমাতে।

আর ফুটবলারদের পুরোনো ক্লাবে খেলতে হবে। অন্য ক্লাবে নাম লেখাতে হলে ক্লাবের সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমে যেতে হবে।

পরবর্তী লিগ কমিটির সভার আগেই এই মতামতগুলো জরুরী ভিত্তিতে দিতে চিঠি দেবে লিগ কমিটি।

ক্লাবগুলোর বেশিরভাগ যে প্রস্তাবনা দেবে, সেভাবেই নতুন মৌসুমের সিদ্ধান্ত নেবে কমিটি।

বাফুফে ও লিগ কমিটি চেয়েছিল সেপ্টেম্বরের মধ্যে দলবদল শুরু করতে। কারণ, একটি মৌসুম হারিয়ে গেছে করোনা ভাইরাসের কারণে।

তাই নতুন মৌসুম একটু আগে শুরুর ইচ্ছে ছিল তাদের। কিন্তু মঙ্গলবারের আলোচনায় ক্লাবগুলো যে মতামত দিয়েছে, তাতে সেপ্টেম্বরে দলবদল শুরুর সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

শেয়ার করুন