করোনাভাইরাসে প্রথম পোষাক শ্রমিকের মৃত্যু

প্রকাশিত

নিউজ ডেস্ক : তৈরী পোষাক খাতের প্রথম কোন শ্রমিক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। তাছাড়া পটুয়াখালীতেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম কোন মৃত্যুর খবর এটি।

বৃহস্পতিবার বিকালে তার নমুনার শনাক্তের ফল পৌঁছানোর আগেই দুপুরে তার বাড়ি মারা যান নারায়ণগঞ্জের এক পোশাক কারখানার এ শ্রমিক বলে স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে।

মৃতের বাড়ি পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলার শ্রীরামপুর ইউনিয়নের দুমকি গ্রামে। তার মৃত্যুতে এলাকা অবরুদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

পটুয়াখালী সিভিল সার্জন ডাক্তার জাহাঙ্গির আলম জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে তার বাড়িতে মারা গেছেন তিনি।

‘পটুয়াখালীতে এটিই করোনাভাইরাস নিয়ে প্রথম মৃত্যু।’

তিনি জানান, গত ৭ এপ্রিল তার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছিল। বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টার দিকে ঢাকা থেকে খবর আসে তার নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। ‘এর আগে দুপুরে তিনি মারা যান।’

তিনি আরো জানান, আগামী শুক্রবার তার পরিবারের সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

“এছাড়াও ওই এলাকার প্রায় ১৫০ মানুষ যারা তার সংস্পর্শে এসেছে তাদের নমুনা সংগ্রহ করার তালিকা করা হচ্ছে।”

দুমকি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শংঙ্কর কুমার বিশ্বাস জানান, গত ৫ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ থেকে জ্বর নিয়ে তার গ্রামে ফেরেন এই যুবক। খবর পেয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা গিয়ে তার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে গুরুতর অসুস্থ হয়ে মারা যান তিনি।

তার বাড়িতে বাবা, সন্তানসম্ভাবা স্ত্রী ও এক ছেলে রয়েছে।

তিনি জানান, জেলা প্রশাসনের নির্দেশে ওই এলাকার অন্তত ৩০টি বাড়ি অনির্দিষ্টকালের জন্য ‘লকডাউন’ ঘোষণা করা হয়েছে।

“করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ওই এলাকায় লকডাউন বলবৎ থাকবে।”

কারোনাভাইরাস আক্রান্ত হযে মারা যাওয়ায় ‘প্রটোকল অনুযায়ী’ তার দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সিভিল সার্জন জানান, পটুয়াখালী থেকে এ পর্যন্ত ১১৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে এর মধ্যে ৪৫ জনের রিপোর্ট এসেছে। যার মধ্যে এই প্রথম এই যুবকই একমাত্র শনাক্ত রোগী ছিলেন।

এদিকে, করোনাভাইরাসে যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় ওই এলাকাসহ আশপাশের এলাকার মানুষের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

শেয়ার করুন